Wellcome to National Portal
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৫ অক্টোবর ২০২২

প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম উদ্দিন

 অধ্যাপক ড. মোঃ সেলিম উদ্দিন; এফসিএ, এফসিএমএ, এমবিএ,সিপিএফএ(ইউকে), পিএইচডি      
চেয়ারম্যান, পরিচালনা পর্ষদ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ হতে সম্প্রতি এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও প্রথিতযশা হিসাব বিজ্ঞানী চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম উদ্দিন; এফসিএ, এফসিএমএ-কে বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন এর পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে পুনঃনিয়োগ প্রদান করা হয়। প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম উদ্দিন; এফসিএ, এফসিএমএ বিগত ১৮/৩/২০১৮ খ্রি. তারিখে বাংলাদেশ হাউস বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন এর পরিচালনা পর্ষদের পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদান করেন।

ড. মোঃ সেলিম উদ্দিন একজন ফেলো চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট (এফসিএ), ফেলো কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্টেন্ট (এফসিএমএ), এবং সার্টিফাইড পাবলিক ফিনান্স অ্যাকাউন্টেন্ট (সিপিএফএ)। পেশাদার হিসাববিধ হিসাবে তিনি তিনটি পেশাদার অ্যাকাউন্টিং সংস্থার ফেলো সদস্য যা হলো (১) ইনস্টিটিউট অফ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস-বাংলাদেশ-আইসিএবি (২) ইনস্টিটিউট অফ কস্ট অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট অ্যাকাউন্ট্যান্টস-আইসিএমএবি এবং (৩) চার্টার্ড ইনস্টিটিউট অফ পাবলিক ফিনান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টিসি - সিআইপিএফএ, যুক্তরাজ্য। তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে বাণিজ্য বিষয়ে অনার্স এবং অ্যাকাউন্টিংয়ে স্নাতকোত্তর অর্জন করেছেন। তিনি সব সময়ই একজন মেধাবী শিক্ষার্থী ছিলেন এবং এম.কমের ফাইনাল পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করেছিলেন।

তিনি ১৯৯৪ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগে প্রভাষক হিসাবে যোগদান করেন এবং  ১৯৯৯, ২০০২ এবং ২০১০ সালে যথাক্রমে সহকারী অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি পেয়েছেন। তিনি ১৯৯৯ সালে  ব্রাসেলস বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ পড়ার জন্য বেলজিয়ামে যান এবং কৃতিত্বের সাথে এমবিএ ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি “বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিবেদনের স্ট্যান্ডার্ডস (আইএফআরএস) -এর প্রয়োগ” বিষয়ে পিএইচডি করেছেন।চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদানের পূর্বে তিনি ১৯৯৩ সালে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস-বিসিএস পরীক্ষায় যোগ্যতা অর্জনের পর খুব অল্প সময়ের জন্য সরকারি কলেজে যোগদান করেন। তিনি এখন একজন অনুষদ সদস্য ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাউন্টিং বিভাগের প্রফেসর।

তিনি সরকার কর্তৃক নিযুক্ত চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ (সিএসই) ও প্রিমিয়ার ব্যাংক লিমিটেডের স্বতন্ত্র পরিচালক ছিলেন। ড. সেলিম রূপালী ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও  রূপালী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ইনস্টিটিউট অফ চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টস-বাংলাদেশ (আইসিএবি) এর ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন (বিএইচবিএফসি) এর পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড (আইবিবিএল) এর নির্বাহী কমিটির চেয়ারম্যান, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ফ্যাকাল্টির ব্যুরো অব বিসনেস রিসার্স এর চেয়ারম্যান এবং চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থ কমিটির সদস্য ।

ড. সেলিম ১৯৯৩ সাল থেকে বিভিন্ন সংস্থায় ফিনান্সিয়াল কনসালট্যান্ট/উপদেষ্টা হিসাবে কাজ করছেন এবং অ্যাকাউন্টিং সিস্টেম ডিজাইন, নিরীক্ষণ ও আশ্বাসের অনুশীলন, প্রকল্প পরিচালনা, ঋণ ও ইক্যুইটির মাধ্যমে প্রকল্পের অর্থায়ন এবং ব্যবসায়িক আলোচনার বিষয়াদির ক্ষেত্রে বিস্তৃত অভিজ্ঞতা সংগ্রহ করেছেন। ড. সেলিম তাত্ত্বিক এবং প্রায়োগীক গবেষণায় গভীর আগ্রহী। তার আগ্রহের প্রধান ক্ষেত্রগুলি হলো-আন্তর্জাতিক অ্যাকাউন্টিং, আইএএস / আইএফআরএস, ফরেনসিক অ্যাকাউন্টিং, ক্রিয়েটিভ অ্যাকাউন্টিং এবং ক্যাপিটাল মার্কেট। অ্যাকাউন্টিং এবং ফিনান্সের বিভিন্ন ক্ষেত্রে দেশে ও বিদেশে তাঁর (৬০)ষাট এর বেশি গবেষণা প্রকাশনা রয়েছে। জাতীয় ও আন্তর্জাতিক সেমিনার, প্রশিক্ষণ কর্মসূচি এবং কর্মশালায় তিনি সক্রিয়ভাবে অংশ গ্রহণ করেছেন এবং পেপার উপস্থাপন করেছেন।

 

তিনি ২০০৮ সালে বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ও আইসিএইডব্লিউ, যুক্তরাজ্য এর যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত আইএফআরএস এবং আইএসএ সম্পর্কিত একটি বিস্তৃত প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেছেন। তিনি ২০১৮ সালে এওটিএস এর অর্থায়ন ও  উদ্যোগে আয়োজিত দি প্রোগ্রাম অন কনসালটেন্সি ট্রেনিং ইন জাপান সম্পর্কিত একটি বিস্তৃত প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণ করেছেন।

তিনি বেলজিয়ামে ই-ব্রোকারেজ সম্পর্কিত একটি প্রকল্পে কাজ করেছেন এবং আন্তর্জাতিক ব্যবসায় আলোচনার এবং চুক্তি চূড়ান্ত করার ব্যাপারে ব্যাপক অভিজ্ঞতা সংগ্রহ করেছেন। ড. সেলিম তাঁর শিক্ষা ও পেশা জীবনে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, যুক্তরাজ্য, জাপান, ফ্রান্স, জার্মানি, বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ডস, লাক্সেমবার্গ, তুরস্ক, সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সিঙ্গাপুর, হংকং, চীন, মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ভারত, নেপাল পরিদর্শন করেছেন।


Share with :

Facebook Facebook